Tag Archive | সামন্তবাদ

পূর্ববাংলার সর্বহারা পার্টি – মাওবাদী বলশেভিক পুনর্গঠন আন্দোলন – (এমবিআরএম)’এর কর্মপরিকল্পনা

 আমরা এখন কি করছি এবং কি করতে চাই”

মোঃ শাহীন

 [নোটঃ লেখাটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল, পূর্ববাংলার সর্বহারা পার্টি মাওবাদী বলশেভিক পুনর্গঠন আন্দোলন কর্তৃক প্রকাশিত পার্টির মতাদর্শগত তাত্ত্বিক মুখপত্র লালঝাণ্ডার তৃতীয় প্রকাশ, সংখ্যা, আগস্ট ২০০০ সংখ্যায় এবং পাঠ্যসূচি২ এ। – সর্বোচ্চ নেতৃত্ব কমিটি।]

আমরা এখন বিপ্লবী শ্রেণী সংগ্রামের উচ্চতম রূপ বিপ্লবীযুদ্ধের অনুশীলন করছি। যার অর্থ হচ্ছে আমরা এখন সর্বহারা সহিংস বিপ্লবে নিয়োজিত রয়েছি। এক্ষেত্রে আমাদের লাইন হচ্ছে শহীদ কমরেড সিরাজ সিকদার প্রদর্শিত মাওবাদী বিপ্লবীযুদ্ধের রাজনীতিকে পুনঃপ্রতিষ্ঠিত ও বিকশিত করার লাইন। এর বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে আমরা পূর্ববাংলার নয়াগণতান্ত্রিক বিপ্লব সম্পন্ন করে সমাজতন্ত্র ও কমিউনিজমের লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে চাই।

আমাদের লাইন ও তার অনুশীলন অর্থাৎ সংগ্রাম, দুটো পরস্পর বিপরীত দিকের একত্ব দ্বারা গঠিত।

এর একটি দিক হচ্ছে, শহীদ কমরেড সিরাজ সিকদার প্রদর্শিত মাওবাদী বিপ্লবীযুদ্ধের রাজনীতিকে পার্টির মধ্যে পুনঃপ্রতিষ্ঠিত ও বিকশিত করার জন্য, এবং এই রাজনীতিকে দেশব্যাপী সংগ্রামিকসাংগঠনিকভাবে বাস্তবায়নের নেতৃত্ব প্রদানে পার্টিকে সক্ষম করে তোলার জন্য আমাদের পার্টিসংগঠনের মাওবাদী বলশেভিক পুনর্গঠন আন্দোলনকে অব্যাহত রাখা ও বিকশিত করার লাইন ও সংগ্রাম। Read More…

“আমাদের মেরে ঠেকানো যাবে না গণ জোয়ারের ঢেউ”

ভারতের মাওবাদী কমিউনিস্ট নেতা কমরেড কিষেনজির বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে পূর্ব বাংলার সর্বহারা পার্টি(এমবিআরএম)’বিবৃতি:

আমাদের মেরে ঠেকানো যাবে না গণ জোয়ারের ঢেউ”

সর্বোচ্চ নেতৃত্ব কমিটি,

পূর্ববাংলার সর্বহারা পার্টি (এমবিআরএম)

১ম সপ্তাহ, ডিসেম্বর ২০১১।

নিপীড়িত জনগণকে মুক্তির পথ দেখায়, তাদের ভাগ্য পরিবর্তনের সংগ্রামে নেতৃত্ব দেয়, কমিউনিস্ট নেতাকর্মীরা। তাই নিপীড়িত জনগণকে চিরকাল পায়ের নিচে দাবিয়ে রাখার জন্য প্রতিক্রিয়াশীলদের সবচেয়ে প্রিয় পদ্ধতি হচ্ছে কমিউনিষ্ট নেতাকর্মীদেরকে হত্যা করা। এভাবেই তারা নিপীড়িত জনগণের অতিপ্রয়োজনীয় বিপ্লবের অগ্রগতিকে থামিয়ে দিতে চেষ্টা করে। ভারতীয় উপমহাদেশে এই বর্বর দৃষ্টিভঙ্গির প্রথম আমদানিকারক ছিল ইন্দিরা গান্ধী ও কংগ্রেস সরকার। যা পরে পূর্ববাংলাসহ প্রতিবেশী দেশগুলোতেও রপ্তানি হয়েছিল। বর্তমানে সেই ইন্দিরা গান্ধীরই পুত্রবধু সোনিয়া গান্ধী আর তার নেতৃত্বাধীন সেই কংগ্রেস, সেই প্রতিক্রিয়াশীল আদিম চণ্ড নীতিকেই এখনো অনুশীলন করছে। যার সর্বশেষ বলি হচ্ছেন কমরেড কিষেনজি। Read More…

%d bloggers like this: